Long Poem Nari \ নারী

  • Poet Name : Kazi Nazrul Islam
  • Poem About : Woman,
  • Poem Title : Nari
Biography Poems
English      Bengali
Here you will find the Long Poem Nari \ নারী of poet Kazi Nazrul Islam

নারী

সাম্যের গান গাই - 
আমার চক্ষে পুরুষ-রমনী কোনো ভেদাভেদ নাই। 
বিশ্বে যা-কিছু মহান্ সৃষ্টি চির-কল্যাণকর 
অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর। 
বিশ্বে যা-কিছু এল পাপ-তাপ বেদনা অশ্রুবারি 
অর্ধেক তার আনিয়াছে নর, অর্ধেক তার নারী। 
নরককুন্ড বলিয়া কে তোমা’ করে নারী হেয়-জ্ঞান? 
তারে বল, আদি-পাপ নারী নহে, সে যে নর-শয়তান। 
অথবা পাপ যে - শয়তান যে - নর নহে নারী নহে, 
ক্লীব সে, তাই সে নর ও নারীতে সমান মিশিয়া রহে। 
এ-বিশ্বে যত ফুটিয়াছে ফুল, ফলিয়াছে যত ফল, 
নারী দিল তাহে রূপ-রস-মধু-গন্ধ সুনির্মল। 
তাজমহলের পাথর দেখেছে, দেখিয়াছ তার প্রাণ? 
অন্তরে তার মোমতাজ নারী, বাহিরেতে শা-জাহান। 
জ্ঞানের লক্ষ্ণী, গানের লক্ষ্ণী, শস্য-লক্ষ্ণী নারী, 
সুষমা-লক্ষ্ণী নারীই ফিরিছে রূপে রূপে সঞ্চারি’। 
পুরুষ এনেছে দিবসের জ্বালা তপ্ত রৌদ্রদাহ, 
কামিনী এনেছে যামিনী-শান্তি, সমীরণ, বারিবাহ। 
দিবসে দিয়াছে শক্তি-সাহস, নিশীথে হয়েছে বধু, 
পুরুষ এসেছে মরুতৃষা লয়ে, নারী যোগায়েছে মধু। 
শস্যক্ষেত্র উর্বর হ’ল, পুরুষ চালাল হল, 
নারী সে মাঠে শস্য রোপিয়া করিল সুশ্যামল। 
নর বাহে হল, নারী বহে জল, সেই জল-মাটি মিশে’ 
ফসল হইয়া ফলিয়া উঠিল সোনালি ধানের শীষে। 

                                     স্বর্ণ-রৌপ্যভার 
নারীর অঙ্গ-পরশ লভিয়া হয়েছে অলঙ্কার। 
নারীর বিরহে, নারীর মিলনে, নর পেল কবি-প্রাণ, 
যত কথা তার হইল কবিতা, শব্দ হইল গান। 
নর দিল ক্ষুধা, নারী দিল সুধা, সুধায় ক্ষুধায় মিলে’ 
জন্ম লভিছে মহামানবের মহাশিশু তিলে তিলে। 
জগতের যত বড় বড় জয় বড় বড় অভিযান 
মাতা ভগ্নী ও বধুদের ত্যাগে হইয়াছে মহীয়ান। 
কোন্ রণে কত খুন দিল নর, লেখা আছে ইতিহাসে, 
কত নারী দিল সিঁথির সিঁদুর, লেখা নাই তার পাশে। 
কত মাতা দিল হৃদয় উপাড়ি’ কত বোন দিল সেবা, 
বীরের স্মৃতি-স্তম্ভের গায়ে লিখিয়া রেখেছে কেবা? 
কোন কালে একা হয়নি ক’ জয়ী পুরুষের তরবারি, 
প্রেরণা দিয়াছে, শক্তি দিয়াছে বিজয়-লক্ষ্ণী নারী। 
রাজা করিতেছে রাজ্য-শাসন, রাজারে শাসিছে রানী, 
রানির দরদে ধুইয়া গিয়াছে রাজ্যের যত গ্লানি। 

                                     পুরুষ হৃদয়হীন, 
মানুষ করিতে নারী দিল তারে আধেক হৃদয় ঋণ। 
ধরায় যাঁদের যশ ধরে না ক’ অমর মহামানব, 
বরষে বরষে যাঁদের স্মরণে করি মোরা উৎসব। 
খেয়ালের বশে তাঁদের জন্ম দিয়াছে বিলাসী পিতা। 
লব-কুশে বনে তাজিয়াছে রাম, পালন করেছে সীতা। 
নারী সে শিখাল শিশু-পুরুষেরে স্নেহ প্রেম দয়া মায়া, 
দীপ্ত নয়নে পরাল কাজল বেদনার ঘন ছায়া। 
অদ্ভূতরূপে পুরুষ পুরুষ করিল সে ঋণ শোধ, 
বুকে করে তারে চুমিল যে, তারে করিল সে অবরোধ। 

                                     তিনি নর-অবতার - 
পিতার আদেশে জননীরে যিনি কাটেন হানি’ কুঠার। 
পার্শ্ব ফিরিয়া শুয়েছেন আজ অর্ধনারীশ্বর - 
নারী চাপা ছিল এতদিন, আজ চাপা পড়িয়াছে নর। 

                                     সে যুগ হয়েছে বাসি, 
যে যুগে পুরুষ দাস ছিল না ক’, নারীরা আছিল দাসী। 
বেদনার যুগ, মানুষের যুগ, সাম্যের যুগ আজি, 
কেহ রহিবে না বন্দী কাহারও, উঠিছে ডঙ্কা বাজি’। 
নর যদি রাখে নারীরে বন্দী, তবে এর পর যুগে 
আপনারি রচা ঐ কারাগারে পুরুষ মরিবে ভুগে! 

                                     যুগের ধর্ম এই- 
পীড়ন করিলে সে পীড়ন এসে পীড়া দেবে তোমাকেই। 

                                     শোনো মর্ত্যের জীব! 
অন্যেরে যত করিবে পীড়ন, নিজে হবে তত ক্লীব! 
স্বর্ণ-রৌপ্য অলঙ্কারের যক্ষপুরীতে নারী 
করিল তোমায় বন্দিনী, বল, কোন্‌ সে অত্যাচারী? 
আপনারে আজ প্রকাশের তব নাই সেই ব্যাকুলতা, 
আজ তুমি ভীরু আড়ালে থাকিয়া নেপথ্যে কও কথা! 
চোখে চোখে আজ চাহিতে পার না; হাতে রুলি, পায় মল, 
মাথার ঘোম্‌টা ছিঁড়ে ফেল নারী, ভেঙে ফেল ও-শিকল! 
যে ঘোমটা তোমা’ করিয়াছে ভীরু, ওড়াও সে আবরণ, 
দূর করে দাও দাসীর চিহ্ন ঐ যত আভরণ! 

                                     ধরার দুলালী মেয়ে, 
ফির না তো আর গিরিদরীবনে পাখী-সনে গান গেয়ে। 
কখন আসিল ‘প্নুটো’ যমরাজা নিশীথ-পাখায় উড়ে, 
ধরিয়া তোমায় পুরিল তাহার আঁধার বিবর-পুরে! 
সেই সে আদিম বন্ধন তব, সেই হতে আছ মরি’ 
মরণের পুরে; নামিল ধরায় সেইদিন বিভাবরী। 
ভেঙে যমপুরী নাগিনীর মতো আয় মা পাতাল ফুঁড়ি! 
আঁধারে তোমায় পথ দেখাবে মা তোমারি ভগ্ন চুড়ি! 
পুরুষ-যমের ক্ষুধার কুকুর মুক্ত ও পদাঘাতে 
লুটায়ে পড়িবে ও চরণ-তলে দলিত যমের সাথে! 
এতদনি শুধু বিলালে অমৃত, আজ প্রয়োজন যবে, 
যে-হাতে পিয়ালে অমৃত, সে-হাতে কূট বিষ দিতে হবে। 

                                     সেদিন সুদূর নয়- 
যেদিন ধরণী পুরুষের সাথে গাহিবে নারীরও জয়!

Nari

Sammer gan gai-
Amar chokkhe purus-romoni kono vedaved nai!
Bisse ja kisu mohan sristi chiro-kolankor
Ordek tar koriyase nari, ordek tar nor.
Bisse ja-kisu alo pap, tap bedona osrubari,
Ordek tar oniyase nor, ordek tar nari.
Norok-kundo boliya ke toma kore nari hey ghan?
Tare bolo, adi-pap nari nohe, sha je nor-soitan.
Othoba pap je-soitan ja-nor nohe nari nohe,
Klib sha, tai sha nor o narite soman misiya rohe.
A-bisse joto futiyase ful, foliyase joto fol
Nari dilo tahe rup-ros-modhu-gondho sunirmol.
Tajmoholer pathor dakheso, dakhiyaso tar pran?
Ontore tar momotaj nari, bahirate sha-jahan.
Ganer lokkhi narie firise rupe rupe sonjari.
Purus aneso diboser jala topto roddrodaho
Kamini anese jamini-santi somiron, baribah!
Dibose diyase sokti-sahos, nisithe hoyese bodhu
Purus asecha morutrisa loye, nari jogayese modhu.
Soshaketro urbor holo, purus chalalo hol,
Nari sai mathe sossho ropiya korilo susamol.
Nor bare holo, nari bohe jol, sai jol-mati mise
Fosol hoiya foliya uthilo sonali daner sise
Sorno-roppovar,
Narir oggo-poros loviya hoyese olokkhar.
Narir birohe, narir milone, nor palo kobi-pran
Joto kotha tar hoilo kobita, sobdo hoilo gan.
Nor dilo khuda, nari dilo suda, sudai khudai mile
Jonmo lovise mohamanober mohashisu tile tile.
Jogoter joto boro boro joy boro boro ovijan
Mata vognai o bodhuder tage hoyyase mohiyan.
Kono rone koto khun dilo nor, lekha ase etihase,
Koto nari dilo sithir sidhur, lekha nai tar pase.
Koto mata dilo ridoy upari koto bon dilo seba
Birer sriti-somver gaye likhiya rekheso keba?
Kono kale eka hoyni k'joye purujer torbari,
Prarona diyase, Sokti diyase bijoy-lokkhi-nari.
Raja koritese rajjo-sason, rajare sasiche rani,
Ranir dorode dhuiya giyase rajjer joto glani.
Purus ridoy-hin,
Manus korite nari dilo tare odek ridoy rin.
Darai jader jos dhore na k omor mohamanob,
Borse borse jader sorone kori more utsob,
Kheyaler bose tader jonmo diyase bilasi pita
Lob-kuse bone tajiyase ram, Palon korese sita!
Nari sha shikhalo sisu purusere snaho prem doya-maya,
Dipto noyone poral kajol badonar ghono chaya!
Otvutrupe purus purus korilo sha rin sode
Buke kore tare chumilo ja, tare korilo sha oborode!
Tini nor-obotar-
Pitar adeshe jononire jini katen hani khutar!
Parso firiya suyesen ajj ordhonarirshor-
Nari chapa chilo atodin, aj chapa pariyase nor!
Sha-juge hoyese basi,
Je juge purus das chilo na ko, Narira achil dasi!
Badenar jug manuser jug, sammer jug aji,..
Kaho rohibe na bondhi kaharo, uthisa dongka baji!
Nor jodi rakhe narire bondhi, tobe ar por juge
Apnari rocha oi karagare purus moribe vuge.
Juger dhormo ai-
Piron korile-sha piron aso pira dabe tomakei!
Sono morter jib!
Onner joto koribe piron, nije hobe toto clib!
Sorno-roppo ologkarer jokkhopurita nari 
Korilo tomay bondini, bol kono sha otachari?
Apnare aj prokaser tobo nai sai bakulota
Aj tumi viru arale thakiya nepottho kao kotha!
Chokhe chokhe aj chahite par na; Hate ruli paye mol,
Mathar gomta chire falo nari, vegge falo o shikol!
Ja gomta toma koriyaso viru, arao sha aboron!
Dur kore dao dasir chinho, oi joto avoron!

Dorar dulali meye
Fer na to ar giridoribone sakhi-sone gan gaye.
Kokhon asilo "pluto" jomraj nishit-pakhai ure,
Dhoriya tomay purilo tahar adhar bibor-pure!
Sai sha odim bondhon tobo, Sai hote acho mori'
Moroner pure; namilo dhorai sai din bivavori.
Vagge jompuri naginir moto ai ma patal furi.
Adhare tomay poth dhekabe ma tomari voggo churi!
Purus-jomer khudar kukur mukto o podaghate
Lutaye poribe o choron-tole dolito jomer sathe!
Atodine sudu bilale omrito, ajj projon jobe,
Je hate piyale omrito sha-hate kut bis dita hobe.
Sadin sudur noy -
Ja din dhoroni puruser sathe gahibe nariroy joy.
     

Featured Artist

Featured Artist

Divyang K Chhaya (advocate)
Poetry

Law Practice
Law Practice
Law Practice

Registered Users